আজ ১৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

১০ বছর পর বার্সাকে হারালো অ্যাতলেটিকো

 

প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:শেষ ১০ বছরে নয় লা লিগায় অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদ বার্সার মুখোমুখি হয়েছে ১৭ বার। এর মধ্যে অ্যাতলাটিকো হেরেছে ১১ বার আর বাকি ৬ ম্যাচ হয়েছে ড্র । খাতা-কলমের সমীকরণে বেশ পিছিয়ে থেকে শনিবার ঘরের মাঠে খেলতে নামে বার্সার বিপক্ষে। মাঠে নেমে বার্সা গোলরক্ষকের ভুলে ১০ বছর পর ১-০ গোলের জয় পেয়েছে ডিয়েগো সিমিওনের শীর্ষরা।

এই জয়ে ৮ ম্যাচে ২০ পয়েন্ট নিয়ে দুই নম্বরে উঠে এসেছে অ্যাতলেটিকো, অন্যদিকে সমান ম্যাচ খেলে ১১ পয়েন্ট নিয়ে ১০ নম্বরে আছে বার্সেলোনা।

ম্যাচের শুরু থেকেই সুযোগ পেয়েও গোল করতে ব্যর্থ রোনাল্ড কোম্যানের শীর্ষরা। ম্যাচের তিন মিনিটের মাথাতেই এগিয়ে যেতে পাড়তো স্প্যানিশ জায়ান্ট বার্সেলোনা। উসমান দেম্বেলের ক্রসে বল পেয়ে যায় আঁতোয়ান গ্রিজম্যান। তবে বল জালে জড়াতে পারেননি তিনি। দ্বাদশ মিনিটে আবার সুযোগ আসে অ্যাতলেটিকোর সামনে। ডি বক্সের ভেতর থেকে মার্কোস ইয়োরেন্তের জোরালো শট ক্রসবার ছুঁয়ে বাইরে চলে যায়। এরপর ম্যাচের ৪১ মিনিটে চমৎকার এক সুযোগ তৈরি করেন মেসি নিজেই। জার্দি আলবার থেকে পাস পেয়ে ডি-বক্সের ভেতর ঢুকে পড়েন তিনি। তবে অ্যাতলেটিকোর গোলরক্ষক ইয়ান ওবলাককে একা পেয়েও গোল করতে পারেননি আর্জেন্টাইন সুপারস্টার।

ম্যাচের জয়সূচক একমাত্র গোলটি আসে প্রথমার্ধের যোগ করা অতিরিক্ত সময় থেকে। বার্সার গোলরক্ষক আন্দ্রে টার স্টেগানের ভুলের সুযোগ নিয়ে বার্সার জালে বল জড়ান ইয়ানিক কারাসকো। এ সময় বার্সার অর্ধে লম্বা পাসে বল পেয়ে যান কারাসকো। ভুলক্রমে স্টেগান এগিয়ে আসে গোলপোস্ট ছেড়ে প্রায় মাঝ মাঠে। সেখানে স্টেগানের পায়ে ফাঁকা দিয়ে বল বের করে লম্বা শটে ফাঁকা পোস্টে বল জড়ান কারাসকো।

এরপর ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধে শুরুতেই চোট পেয়ে মাঠ ছাড়েন পিকে। ম্যাচের ৮২তম মিনিটে আরোও একবার গোলের সুযোগ তৈরি করলেও অ্যাতলাটিকো মাদ্রিদের গোলরক্ষকের বাঁধা হয়ে দাঁড়ান। মেসির ক্রসে গ্রিজম্যান হেড করলেও গোলরক্ষক তা ঠেকিয়ে দেন। ফলে আরো একটি ম্যাচ হেরে মাঠ ছাড়তে হয় কাতালান ক্লাব বার্সেলোনাকে।