আজ ২রা মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৬ই জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

বারবার হামলা হলে নীরব থাকবে না হেফাজত, হুঁশিয়ারি মহাসচিবের

প্রথমবার্তা প্রতিবেদকঃ আলেম-ওলামাদের বিরুদ্ধে কুৎসা রটিয়ে বারবার মাদ্রাসায় হামলা হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন হেফাজতে ইসলামের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব আল্লামা নুরুল ইসলাম জিহাদী। তিনি বলেছেন, ‘এভাবে বারবার হামলার শিকার হলে নীরব থাকবে না হেফাজত।’

 

আজ রোববার রাজধানীর খিলগাঁওয়ে মাখজানুল উলুম মাদ্রাসায় সংবাদ সম্মেলনে এ হুঁশিয়ারি দেন মাওলানা জিহাদী। সম্প্রতি কক্সবাজারের পিএমখালী, চট্টগ্রামের ফটিকছড়ির মাইজভান্ডার এবং চাঁদপুরের কঁচুয়ায় মাদ্রাসা ভাঙচুর হয়েছে। এর প্রতিবাদ জানাতেই সংবাদ করেন নুরুল ইসলাম জিহাদী।

 

কওমি মাদ্রাসা ভিত্তিক সংগঠন হেফাজতের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব বলেন, ‘হামলার ঘটনায় শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা ক্ষুব্ধ। ক্ষোভ প্রকাশে হেফাজত চাইলে কর্মসূচি দিতে পারে। কিন্তু তারা ধৈর্যধারণ করছেন। দোয়া করছেন, আল্লাহ যেন হামলাকারীদের শুভবুদ্ধি দান করেন। হেফাজতের কর্মী সমর্থকরা আইন নিজের হাতে তুলে নিতে চায় না। সরকার হামলাকারীদের বিচার করুক।’

 

নুরুল ইসলাম জিহাদী বলেন, ‘আল্লামা আহমদ শফী হেফাজত প্রতিষ্ঠা করেছিলেন ইসলাম বিরোধী শক্তির বিরুদ্ধে আন্দোলন করতে। হেফাজত রাজনৈতিক দল নয়। সরকার বিরোধী বা নির্বাচনমুখী সংগঠনও নয়।

 

হেফাজত সংবিধান ও প্রচলিত আইন মেনে আন্দোলন করে। কিন্তু চাঁদপুর, কক্সবাজার ও ফটিকছড়িতে মাদ্রাসায় আক্রান্ত হওয়ার পর কেউ বলেনি আক্রমণকারীরা কেন আইন হাতে তুলে নিয়েছে? সরকারকে জানাতে চাই, তারা কেনো আইন হাতে তুলে নিল, তারা আইন হাতে তুলে নেওয়ার কে? হামলাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে।’

 

আহমদ শফীর মৃত্যুর ঘটনাকে ‘হত্যা’ আখ্যা দিয়ে হামলা দায়েরেরও নিন্দা করেন নুরুল ইসলাম জিহাদী। তিনি বলেন, ‘আল্লামা শফীর মৃত্যুতে সংসদে শোক প্রস্তাব এসেছে। অস্বাভাবিক মৃত্যুর নামগন্ধও ছিল না।

 

কিন্তু হঠাৎ একটি মামলা হলো কেনো? কার নির্দেশে মামলা হলো?’ সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন-হেফাজতের নায়েবে মাওলানা আবদুর রব ইউসুফী, ঢাকা মহানগর সভাপতি মাওলানা জুনায়েদ আল হাবিবসহ বিভিন্ন স্তরের নেতারা।