আজ ২রা মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৬ই জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

আমিরের কঠোর সমালোচনা করলেন মিসবাহ

প্রথমবার্তা প্রতিবেদকঃ ক্রিকেটবিশ্বে আলোড়ন তুলে তার আবির্ভাব হয়েছিল আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে। বিদায় নেওয়ার সময়ও তুলেছেন আলোড়ন। আগেই টেস্ট ক্রিকেট থেকে অবসরে যাওয়া আমির গত মাসে আচমকাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় জানান আমির। যেসব কারণ দেখিয়ে তিনি অকাল অবসরে গেছেন, সেসব কথায় কোনো সত্যতা নেই বলে দাবি করেছেন পাকিস্তানের প্রধান কোচ মিসবাহ-উল-হক। তার মতে, আমির তিলকে তাল বানিয়েছেন।

অবসরের কারণ হিসেবে আমির বলেছিলেন, দলের ভেতর প্রচণ্ড মানসিক নির্যাতন, অসহনীয় চাপ ও দলে বৈরি পরিবেশের কথা। টিম ম্যানেজমেন্ট এবং বোলিং কোচ ওয়াকার ইউনিসেরও সমালোচনা করেছিলেন তিনি। গতকাল সংবাদ সম্মেলনে মিসবাহ এ প্রসঙ্গে বলেন, ‘আমিরের ঘটনায় ওয়াকারের হাত থাকা নিয়ে কথা উঠেছে। কিন্তু এসবে কোনো সত্যতা নেই। ৬ জন নির্বাচক ছিলেন, সঙ্গে আমি প্রধান নির্বাচক। তারপর অধিনায়ক তো ছিলই। কাজেই কেবলমাত্র একজনই দল নির্বাচনে প্রভাব রেখেছে, এটা অসম্ভব।’

মিসবাহ আরও বলেন, ‘পারফরম্যান্সের কারণেই তাকে কেউ দলে নিতে চায়নি। আমি বুঝতে পারছি না, কেন সে এত কিছু তৈরি করছে এবং গোটা দৃশ্যপটকে তিল থেকে তাল বানিয়েছে। সে দলে জায়গা পায়নি, এরপর প্রক্রিয়া ছিল খুব সাধারণ। ঘরোয়া ক্রিকেটে ফিরে নিজের ফর্ম দেখিয়ে জাতীয় দলে জায়গা আদায় করে নেওয়া। বাকি সবকিছু এখানে অবান্তর। স্রেফ সিনিয়র বোলার বলেই তো কাউকে নেওয়া যাবে না, ফর্মও দেখাতে হবে।’

স্পট ফিক্সিংয়ের দায়ে ৫ বছরের নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে আমির যখন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরেন, তখন মিসবাহ ছিলেন অধিনায়ক। দলের অনেক ক্রিকেটার আমিরকে ফেরানোর বিরুদ্ধে ছিলেন। সেই কথা মনে করিয়ে মিসবাহ বলেন, ‘সে যখন ফিরে এলো, আমিই ছিলাম অধিনায়ক। তখন তাকে স্বাগত জানিয়েছি, সবকিছু একপাশে সরিয়ে কেবল পাকিস্তান ক্রিকেটের স্বার্থে তাকে সমর্থন করেছি।শাহিন আফ্রিদি, হাসনাইন, হারিস রউফের মতো বোলাররা যখন নিজেদের উজার করে দিচ্ছে, উন্নতি করছে এবং আমিরের চেয়ে ভালো করছে, তখন আমিরের উচিত ছিল ওদের সঙ্গে লড়াই করে দলে জায়গা করে নেওয়া।’