1. [email protected] : bijoy : bijoy Book
  2. [email protected] : News Room : News Room
  3. [email protected] : news uploader : news uploader
  4. [email protected] : prothombarta :
দেখুন ৫০ কোম্পানির ইপিএস
শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০১:৫৩ দিন

দেখুন ৫০ কোম্পানির ইপিএস

  • পোষ্ট হয়েছে : রবিবার, ৫ ফেব্রুয়ারী, ২০২৩

প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক: পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ৫০ কোম্পানি চলতি অর্থবছরের (জুলাই-ডিসেম্বর ২০২২) দ্বিতীয় প্রান্তিকের অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। কোম্পানি ও ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এই তথ্য জানা গেছে। কোম্পানিগুলোর তথ্য নিচে তুলে ধরা হলো।

বীচ হ্যাচারী: দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২৯ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৩১ পয়সা।

 

 

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৬০ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ০২ পয়সা।

আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ১০ টাকা ৩২ পয়সা।

ইফাদ অটোস: দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১৩ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৫৩ পয়সা।

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ৬৬ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৯৩ পয়সা।

 

 

আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ৩৮ টাকা ২৫ পয়সা।

ফরচুন সুজ: দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০৭ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৭৫ পয়সা।

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১ টাকা ১৯ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ১ টাকা ৯৮ পয়সা।

আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ১৪ টাকা ৮৮ পয়সা।

 

 

ইনফরমেশন সার্ভিসেস: দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১৩ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ১৪ পয়সা।

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২৭ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ২৬ পয়সা।

আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ৩ টাকা ৩৮ পয়সা।

 

 

প্রাইম টেক্সটাইল: দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ২ টাকা১২ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ১৬ পয়সা।

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ২ টাকা ২০ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৩০ পয়সা।

আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ৭৮ টাকা ৩৮ পয়সা।

বিকন ফার্মা: দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১ টাকা ৬১ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ১ টাকা ০৭ পয়সা।

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি ইপিএস হয়েছে ২ টাকা ৬০ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ২ টাকা ৫৯ পয়সা।

আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ২৬ টাকা ৭৬ পয়সা।

 

 

অলটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজ: দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০২ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ১ টাকা ৩৬ পয়সা।

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ১ টাকা ৯৫ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ১২ পয়সা।

আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ৬ টাকা ৮০ পয়সা।

সেন্ট্রাল ফার্মা: দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ০৬ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে লোকসান ছিল ১০ পয়সা।

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ১৪ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে লোকসান ছিল ১৮ পয়সা।

 

 

আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ৫ টাকা ৮২ পয়সা।

হা ওয়েল: দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১ টাকা ৪৫ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৭৬ পয়সা।

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ৩ টাকা ০৪ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ১ টাকা ৭৪ পয়সা।

আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ৩৪ টাকা ৮৯ পয়সা।

রেনাটা: দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৭ টাকা ৪৪ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ১১ টাকা ৭০ পয়সা।

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ১৮ টাকা ৩০ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ২৩ টাকা ৫৭ পয়সা।

আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ২৬১ টাকা ৬৩ পয়সা।

মনোস্পুল পেপার: দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১ টাকা ৬১ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৮৫ পয়সা।

 

 

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ৩ টাকা ১৫ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ১ টাকা ১৪ পয়সা।

আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ৪৭ টাকা ০৩ পয়সা।

এপেক্স ফুটওয়্যার: দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২ টাকা ৭৯ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ১ টাকা ৫০ পয়সা।

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ৫ টাকা ২২ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৩ টাকা ৬৮ পয়সা।

আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ৩৩১ টাকা ৯৯ পয়সা।

ফাইন ফুড: দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ০.০১৯ টাকা। আগের বছর একই সময়ে লোকসান ছিল ০.০২৫ টাকা।

আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ১০ টাকা ৫১ পয়সা।

 

 

পেপার প্রসেসিং: দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৯১ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ১ টাকা ৩৩ পয়সা।

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ১ টাকা ৭৯ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ১ টাকা ১২ পয়সা।

আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ৩২ টাকা ৫৭ পয়সা।

মুন্নু ফেব্রিক্স: দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০৩ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ০৪ পয়সা।

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ০৬ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ০৫ পয়সা।

আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ২৫ টাকা ৩৭ পয়সা।

সামিট অ্যালায়েন্স: দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ৮৮ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৪৫ পয়সা।

আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ৩৩ টাকা ৭২ পয়সা।

ঢাকা ডাইং: দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০৩ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৪২ পয়সা।

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ০৬ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৭৩ পয়সা।

আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ৩৪ টাকা ৭১ পয়সা।

ডমিনেজ স্টিল: দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২৬ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ১৫ পয়সা।

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ২৯ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৩০ পয়সা।

আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ১৭ টাকা ৩৮ পয়সা।

তৌফিকা ফুড অ্যান্ড লাভেলো আইসক্রিম: দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১৭ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ১৫ পয়সা।

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ৭৩ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৫৫ পয়সা।

আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ১২ টাকা ৪৩ পয়সা।

ফার ইস্ট নিটিং: দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৫২ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ২১ পয়সা।

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ৪৫ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৪৩ পয়সা।

আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ১৮ টাকা ৯৫ পয়সা।

গোল্ডেন সন: দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির লোকসান হয়েছে ৩৯ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৩৪ পয়সা।

আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ১৯ টাকা ৩৫ পয়সা।

রেনউইক যজ্ঞেশ্বর: কোম্পানিটি দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ৫ টাকা ৬০ পয়সা, গত বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি লোকসান ছিল ৩ টাকা ৮৫ পয়সা।

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ১০ টাকা ৫৭ পয়সা, গত বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি লোকসান ছিল ৯ টাকা ৭৭ পয়সা।

দুই প্রান্তিক শেষে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির নেট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো হয়েছে ১ টাকা ৪৯ পয়সা, গত বছর একই সময়ে নেট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো ছিল ১ টাকা ৭৪ পয়সা।

৩১ ডিসেম্বর, ২০২২ তারিখে শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য হয়েছে মাইনাস ৭৭ টাকা ৬ পয়সা।

ফু ওয়াং ফুড: দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ১০ পয়সা, গত বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ৩ পয়সা।

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় আয় হয়েছে ১৪ পয়সা, গত বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি লোকসান ছিল ৯ পয়সা।

৩১ ডিসেম্বর, ২০২২ তারিখে শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য হয়েছে ৩ টাকা ৮০ পয়সা।

আমান ফিড: দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ২৩ পয়সা, গত বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ৯১ পয়সা।

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ৩৮ পয়সা, গত বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ১ টাকা ৮৫ পয়সা।

দুই প্রান্তিক শেষে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির নেট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো হয়েছে ১৯ পয়সা, গত বছর একই সময়ে নেট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো ছিল ১ টাকা ১৯ পয়সা।

৩১ ডিসেম্বর, ২০২২ তারিখে শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য হয়েছে ৩২ টাকা ৮৯ পয়সা।

এপেক্স স্পিনিং: দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ১ টাকা ১০ পয়সা, গত বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ১ টাকা ১৬ পয়সা।

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ১ টাকা ৭২ পয়সা, গত বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ১ টাকা ৮১ পয়সা।

দুই প্রান্তিক শেষে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির নেট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো হয়েছে ১২ টাকা ৬৮ পয়সা, গত বছর একই সময়ে নেট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো ছিল ৩৪ পয়সা।

৩১ ডিসেম্বর, ২০২২ তারিখে শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য হয়েছে ৬০ টাকা ২১ পয়সা।

বেঙ্গল উইন্ডসর: দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ১৫ পয়সা, গত বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ১৩ পয়সা।

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ৩১ পয়সা, গত বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ২৯ পয়সা।

দুই প্রান্তিক শেষে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির নেট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো হয়েছে ৬৭ পয়সা, গত বছর একই সময়ে নেট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো ছিল ৫১ পয়সা।

৩১ ডিসেম্বর, ২০২২ তারিখে শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য হয়েছে ২৫ টাকা ৬৬ পয়সা।

সাভার রিফ্যাক্টরিজ: দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ৭১ পয়সা, গত বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি লোকসান ছিল ২০ পয়সা।

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ১ টাকা ৬০ পয়সা, গত বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি লোকসান ছিল ৫৩ পয়সা।

দুই প্রান্তিক শেষে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির নেট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো হয়েছে ১ টাকা ৫৯ পয়সা, গত বছর একই সময়ে নেট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো লোকসান ছিল ১ টাকা ৭৪ পয়সা।

৩১ ডিসেম্বর, ২০২২ তারিখে শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য হয়েছে ৯৩ টাকা ৯২ পয়সা।

শমরিতা হসপিটাল: দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ২০ পয়সা, গত বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ১৮ পয়সা।

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ৩৪ পয়সা, গত বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ১ টাকা ২০ পয়সা।

দুই প্রান্তিক শেষে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির নেট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো হয়েছে ১ টাকা ৩২ পয়সা, গত বছর একই সময়ে নেট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো ছিল ১ টাকা ৮১ পয়সা।

৩১ ডিসেম্বর, ২০২২ তারিখে শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য হয়েছে ৪৮ টাকা ৭৪ পয়সা।

অলিম্পিক এক্সেসরিজ:

দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ৪ পয়সা, গত বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি লোকসান ছিল ৪ পয়সা।

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ২১ পয়সা, গত বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি লোকসান ছিল ১১ পয়সা।

দুই প্রান্তিক শেষে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির নেট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো হয়েছে ১ পয়সা, গত বছর একই সময়ে নেট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো ছিল ৫ পয়সা।

৩১ ডিসেম্বর, ২০২২ তারিখে শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য হয়েছে ১৩ টাকা ১৭ পয়সা।

ইনডেক্স এগ্রো: দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ১ টাকা ৫ পয়সা, গত বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ১ টাকা ১২ পয়সা।

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ২ টাকা ১২ পয়সা, গত বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ২ টাকা ৬৩ পয়সা।

দুই প্রান্তিক শেষে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির নেট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো লোকসান হয়েছে ২১ পয়সা, গত বছর একই সময়ে নেট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো ছিল ৫ টাকা ৫৬ পয়সা।

৩১ ডিসেম্বর, ২০২২ তারিখে শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য হয়েছে ৬৪ টাকা ১৫ পয়সা।

আমান কটন: দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ২ পয়সা, গত বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ২৯ পয়সা।

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ২৯ পয়সা, গত বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ৫৫ পয়সা।

দুই প্রান্তিক শেষে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির নেট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো হয়েছে ২ টাকা ৬২ পয়সা, গত বছর একই সময়ে নেট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো ছিল ১ টাকা ৯৫ পয়সা।

৩১ ডিসেম্বর, ২০২২ তারিখে শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য হয়েছে ৩৪ টাকা ৯২ পয়সা।

রংপুর ফাউন্ড্রি: দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ৯৯ পয়সা, গত বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ১ টাকা ৫ পয়সা।

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ২ টাকা ১৪ পয়সা, গত বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ২ টাকা ১৯ পয়সা।

দুই প্রান্তিক শেষে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির নেট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো হয়েছে ৪ টাকা ৯১ পয়সা, গত বছর একই সময়ে নেট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো ছিল ৩ টাকা ২১ পয়সা।

৩১ ডিসেম্বর, ২০২২ তারিখে শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য হয়েছে ৩০ টাকা ৪৬ পয়সা।

এএমসিএল প্রাণ: দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ১ টাকা ৯২ পয়সা, গত বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ২ টাকা ১০ পয়সা।

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ৩ টাকা ৮৭ পয়সা, গত বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ৪ টাকা ৩৫ পয়সা।

দুই প্রান্তিক শেষে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির নেট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো হয়েছে ৩ টাকা ৮৩ পয়সা, গত বছর একই সময়ে নেট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো ছিল ৬ টাকা ৮৮ পয়সা।

৩১ ডিসেম্বর, ২০২২ তারিখে শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য হয়েছে ৮৭ টাকা ২৬ পয়সা।

লিগ্যাসী ফুটওয়্যার: দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ১৭ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ০৩ পয়সা।

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির লোকসান হয়েছে ৭৯ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ১১ পয়সা।

আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ৯ টাকা ০৪ পয়সা।

তমিজউদ্দিন টেক্সটাইল: দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১ টাকা ৮৬ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ১ টাকা ৮৫ পয়সা।

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২টাকা ৭২ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ২ টাকা ৬০ পয়সা।

আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ৮৬ টাকা ৭৯ পয়সা।

 

ইস্টার্ন লুব্রিক্যান্টস: দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ৬ টাকা ২৬ পয়সা, গত বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ১ টাকা ২২ পয়সা।

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ৬ টাকা ৫১ পয়সা, গত বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ২ টাকা ৯৬ পয়সা।

৩১ ডিসেম্বর, ২০২২ তারিখে শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য হয়েছে ১৯৪ টাকা ৩ পয়সা।

এসোসিয়েটেড অক্সিজেন: দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৩৩ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৪২ পয়সা।

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ৭৪ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৮৮ পয়সা।

আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ১৮ টাকা ৪৯ পয়সা।

এইচ আর টেক্সটাইল: দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৫৪ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৪৮ পয়সা।

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ১ টাকা ৫২ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ১ টাকা ০৯ পয়সা।

আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ৪৬ টাকা ৮৭ পয়সা।

বেক্সিমকো লিমিটেড: দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৩ টাকা ৬০ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৪ টাকা ৪৫ পয়সা।

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ৭ টাকা ৩৫ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৮ টাকা ৪৮ পয়সা।

বেক্সিমকো ফার্মা: দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২ টাকা ৭৭ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৩ টাকা ৮৫ পয়সা।

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ৬ টাকা ০২ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৭ টাকা ১২ পয়সা।

আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ৯৩ টাকা ৫২ পয়সা।

শাইনপুকুর সিরামিকস: দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১৫ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ০৮ পয়সা।

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ২৫ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ১০ পয়সা।

আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ৩১ টাকা ৫৮ পয়সা।

শাহজীবাজার পাওয়ার: দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ১ টাকা ৩৮ পয়সা, গত বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ১ টাকা ১৪ পয়সা।

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় লোকসান হয়েছে ৯৫ পয়সা, গত বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ৩ টাকা ১৯ পয়সা।

৩১ ডিসেম্বর, ২০২২ তারিখে শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য হয়েছে ৩৭ টাকা ২৫ পয়সা।

 

ইভিন্স টেক্সটাইল: দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ১০ পয়সা, গত বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ৫ পয়সা।

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় লোকসান হয়েছে ২৬ পয়সা, গত বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি লোকসান ছিল ২০ পয়সা।

৩১ ডিসেম্বর, ২০২২ তারিখে শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য হয়েছে ১২ টাকা ৩২ পয়সা।

আর্গন ডেনিমস: দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০৩ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ০৭ পয়সা।

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ২৩ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে লোকসান ছিল ৪৬ পয়সা।

আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ২৩ টাকা ৪৬ পয়সা।

ইন্ট্রাকো সিএনজি: দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৪৯ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ২১ পয়সা।

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ১ টাকা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৬৭ পয়সা।

আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ১২ টাকা ৫০ পয়সা।

বারাকা পতেঙ্গা: দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৭০ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৭২ পয়সা।

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির লোকসান হয়েছে ১ টাকা ৫৭ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ১ টাকা ৮৫ পয়সা।

আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ২৬ টাকা ২৮ পয়সা।

অগ্নি সিস্টেমস: দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৩১ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ২৭ পয়সা।

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ৬৯ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৫৭ পয়সা।

আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ১৫ টাকা ৫১ পয়সা।

মেঘনা পেট্রোলিয়াম: দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১৭ টাকা ০৪ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ১২ টাকা ৭৪ পয়সা।

আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ১৯১ টাকা ১৯ পয়সা।

খুলনা পাওয়ার: দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ০৩ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে লোকসনা ছিল ০৮ পয়সা।

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ০২ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে লোকসান ছিল ১৮ পয়সা।

আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ১৮ টাকা ৮৭ পয়সা।

আমরা নেটওয়ার্ক: দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১ টাকা ৩১ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৪১ পয়সা।

দুই প্রান্তিকে বা ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর’২২) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি ইপিএস হয়েছে ২ টাকা ৩৫ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৯০ পয়সা।

আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ৩৮ টাকা ০৪ পয়সা।

Facebook Comments Box

শেয়ার দিয়ে সাথেই থাকুন

print sharing button
এ বিভাগের অন্যান্য খবর