আজ ১৮ই আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২রা জুলাই, ২০২০ ইং

বিপিএল কেন পিছিয়ে? আকরাম খানের অভিমত

নিজস্ব প্রতিবেদক, প্রথম বার্তা (রাইসুল ইসলাম): ভারতের আইপিএলের আদলে বাংলাদেশেও শুরু হয়েছিল ফ্র্যাঞ্চাইজি ভিত্তিক টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট বিপিএল। কোনও সন্দেহ নেই আইপিএল তামাম দুনিয়ার মধ্যে সর্বাধিক জনপ্রিয়। সব ক্রিকেটারই এই লিগে খেলার জন্য উন্মুখ হয়ে থাকেন সারা বছর। এখান থেকে যেমন রাতারাতি কোটিপতি হওয়ার পাসওয়ার্ড পাওয়া সম্ভব, তেমনই একই সঙ্গে অনেক ক্রিকেটারের উত্থানের মঞ্চও তৈরি হয়েছে আইপিএল থেকে। কিন্তু বিপিএল সে অর্থে কোনো আবেদনই তৈরি করতে পারেনি।

বিপিএল বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় ঘরোয়া লিগ হলেও এখনও ক্রিকেটবিশ্বের কাছে সেই উচ্চতায় পৌঁছতে পারেনি। বিপিএলের জনপ্রিয়তা বাংলাদেশের গণ্ডি ছাপিয়ে যেতে পারেনি। এর কারণ নিয়ে বিসিবির পরিচালনা বিভাগের প্রধান আকরাম খান ভারতীয় মিডিয়া ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে বলেছেন, ‘দেখুন, আইপিএল যে একনম্বর এটা সকলেই জানে। কারণ ভারতের ক্রিকেট বাজার অনেক বড়। এখানে দুনিয়ার শীর্ষস্থানীয় ক্রিকেটাররা অংশগ্রহণ করে। আইপিএলের প্রভাব এতটাই যে টুর্নামেন্ট চলাকালীন অন্য কোথাও কোনো টি-টোয়েন্টি হয় না। এই প্রভাব, ব্যপ্তিতেই আইপিএল অনেক এগিয়ে।’

 

আইপিএল থেকে বিপিএল কোথায় পিছিয়ে রয়েছে? আকরাম খান মনে করেন, আইপিএলের সঙ্গে বিপিএলকে মেলানো যাবে না। তার কথায়, ‘ভারতে ক্রিকেট অনেক জনপ্রিয়। একই সঙ্গে ওদের মার্কেটও বড়। আর্থিকভাবে ওরা অনেক শক্তিশালী। সবকিছু মিলিয়ে ওরা আমাদের চেয়ে অনেক এগিয়ে রয়েছে। প্রত্যেক দেশের ক্রিকেটার ওখানে খেলার জন্য আগ্রহ দেখায়। ভারত এই বাড়তি সুবিধা পায়, যেটা বাংলাদেশের নেই।’

 

বাংলাদেশের ক্রিকেট মানে ঘুরেফিরে ঢাকা আর চট্টগ্রাম। এই দুই ভেন্যুর মধ্যে আটকে আছে আন্তর্জাতিক কিংবা ঘরোয়া ক্রিকেট। যদিও গত কয়েক বছর হলো সিলেটও বিপিএলের বেশ কিছু ম্যাচ আয়োজন করা হচ্ছে। কিন্তু এত বড় টুর্নামেন্টকে ছড়িয়ে দেওয়ার জন্য তিনটি ভেন্যু কী যথেষ্ট? বিসিবির ক্রিকেট অপারেশন বিভাগের দায়িত্বে থাকা আকরাম খানের মতে, ‘ভেন্যু আমাদের একটা বেড়েছে। আস্তে আস্তে বাড়বে। আমাদের একটু সময় লাগবে। ভারতের সঙ্গে আমাদের ক্রিকেটের তুলনা করলে তো আর হবে না।’

 

আইপিএল যে এত জনপ্রিয় তার অন্যতম কারণ সেখানে হোম অ্যান্ড অ্যাওয়ে ভিত্তিতে ম্যাচ হয়। বিভিন্ন শহরে খেলা হয়। এতে শহরকেন্দ্রিক সমর্থকগোষ্ঠীও তৈরি হয়। বিপিএল এই জায়গায় পিছিয়ে। শুধু ঢাকা, চট্টগ্রাম এবং সিলেটই খেলা দেখছে। বাকি শহরগুলো বঞ্চিত হচ্ছে। আকরাম বলেছেন, আগামী ৪-৫ বছরের মধ্যে বিপিএলেও হোম অ্যান্ড অ্যাওয়েতে ম্যাচ হবে। তার ভাষায়, ‘এখন তো মোটামুটি শুরু হয়েছে। একটু অপেক্ষা করতে হবে। আশা করি, চার-পাঁচ বছরের মধ্যে হয়ে যাবে। ভারতের মতো আমরাও একসময় ওই স্তরের ক্রিকেটার উপহার দেব।’

এই পোস্টটি আমাদের সোশাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন