আজ ২৬শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১০ই আগস্ট, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

শেয়ারবাজারে পুঁজি হারিয়ে বিনিয়োগকারীরা দিশেহারা

নিজস্ব প্রতিবেদক, প্রথম বার্তা (রাইসুল ইসলাম): একদিন (রোববার) শেয়ারবাজারে সূচক বৃদ্ধির পর সোমবার (১৩ জানুয়ারি) ফের বড় ধরনের দরপতন হয়েছে। এদিন দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সূচক কমেছে ৮৯ পয়েন্ট। অপর বাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) প্রধান সূচক কমেছে ২৮৮ পয়েন্ট।

 

সূচকের পাশাপাশি কমেছে প্রায় সব কোম্পানির শেয়ারের দাম ও লেনদেন। আর তাতে ডিএসইর বিনিয়োগাকরীদের পুঁজি নেই অর্থাৎ মূলধন কমেছে ৬ হাজার ১৮৪ কোটি ১৬ লাখ ৩৪ হাজার টাকা।

 

এর আগে টানা পাঁচদিন দরপতনের পর সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবসে সূচক ও শেয়ারের দাম কিছুটা বেড়েছিলো। বাজার সংশ্লিষ্টরা বলছেন, একটি চক্র পরিকল্পিতভাবে পুঁজিবাজারে দরপতন ঘটাচ্ছে। বিনিয়োগকারীদের সর্বশান্ত করেছে।

 

ডিএসইর তথ্য মতে, সোমবার সূচকের নিম্নমুখী প্রবণতায় দিনের লেনদেন শুরু হয়। সূচকের এই নিম্নমুখী প্রবণতা অব্যাহত ছিলো লেনদেনের শেষ সময় পর্যন্ত।

 

ফলে দিন শেষে ডিএসইর প্রধান সূচক আগের দিনের ৮৮ দশমিক ৯৬ পয়েন্ট কমে ৪ হাজার ১২৩ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। যা ৪ বছর ৮ মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন স্থানে রয়েছে। এর আগে ২০১৫ সালের ৭ মে ডিএসইর প্রধান সূচক কমে ৪ হাজার ১২২ পয়েন্টে ছিলো।

 

অন্য দুই সূচকের মধ্যে ডিএস-৩০ সূচক আগের দিনের চেয়ে ২৭ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ৩৮৯ পয়েন্টে এবং ডিএসইএস সূচক ২০ দশমিক ১৮ পয়েন্ট কমে ৯২৯ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে।

 

লেনদেন হওয়া কোম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ২১টির, কমেছে ৩১৩টির আর অপরিবর্তিত রয়েছে ২০টির। এদিন ডিএসইতে মোট ২৮৬ কোটি ৭৭ লাখ ৬ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে। এর আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ২৬০ কোটি ৮২ লাখ ১১ হাজার টাকার।

 

অপর পুঁজিবাজার সিএসইর প্রধান সূচক আগের দিনের চেয়ে ২৩৮ পয়েন্ট কমে ১২ হাজার ৫৭০ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। লেনদেন হয়েছে ১৩ কোটি ৫৭ লাখ ৩ হাজার টাকা। এর আগের দিন লেনদেন হয়েছিলো ১৫ কোটি ৫৭ লাখ ৩ হাজার টাকা।

 

লেনদেন হওয়া কোম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ২৮টির, কমেছে ২০৬টির আর অপরিবর্তিত রয়েছে ১৮টি কোম্পানির শেয়ার। আর তাতে বিনিয়োগকারীদের মূলধন কমেছে ৬ হাজার ৭৪ কোটি ৯৯ লাখ ৬ হাজার টাকা।

এই পোস্টটি আমাদের সোশাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন