আজ ২৫শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৯ই জুলাই, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

কোন প্রাণী হারাম কোন প্রাণী হালাল

প্রথমবার্তা,নিজস্ব প্রতিবেদক:  সাধারণত প্রাণী দুই ধরনের : স্থলজ প্রাণী ও জলজ প্রাণী। জলজ প্রাণীর মধ্যে মাছ ছাড়া সব প্রাণী খাওয়া হারাম। বর্তমানে অনেককে দেখা যায়, ব্যাঙ, কাঁকড়া ইত্যাদি খেয়ে থাকে; তা সম্পূর্ণ হারাম।

 

 

 

মাছের মধ্যে মৃত মাছ খাওয়াও হালাল, চাই তা যে কারণেই মারা যাক, যেমন—পানি থেকে ওঠানোর কারণে, কোনো আঘাত পাওয়ায়, পানিতে কোনো বিষ মেশানোর কারণে বা সরাসরি সূর্যের তাপ পড়া ইত্যাদি কারণে মারা যায়, তা নষ্ট হওয়ার আগ পর্যন্ত খাওয়া হালাল। হ্যাঁ, যে মাছ বিনা কারণে মারা যায়, তা খাওয়া মাকরুহে তাহরিমি।

 

 

 

 

রাসুলুল্লাহ (সা.) ইরশাদ করেন, ‘তোমরা সমুদ্রে নিক্ষিপ্ত (মাছ), শুকনায় উঠে যাওয়া মাছ খাও। আর বিনা কারণে মৃত মাছ খেয়ো না। (আবু দাউদ, হাদিস : ৩৮১৫)আর স্থলজ প্রাণী তিন প্রকার : এক. ওই সব প্রাণী, যার কোনো রক্ত নেই, যেমন—মশা-মাছি, মাকড়সা, পিঁপড়া, টিড্ডি ইত্যাদি।

 

 

 

 

দুই. ওই সব প্রাণী, যার রক্ত থাকলেও তা প্রবাহিত রক্তবিশিষ্ট প্রাণী নয়, যেমন—সাপ, ইঁদুর ইত্যাদি। উভয় প্রকার প্রাণীর মধ্য থেকে শুধু রক্তবিহীন প্রাণী টিড্ডি খাওয়া হালাল আর বাকি সব ঘৃণিত ও নিকৃষ্ট হওয়ায় সেগুলো খাওয়া হারাম।

 

 

 

 

তিন. ওই সব প্রাণী, যা প্রবাহিত রক্তবিশিষ্ট হয়, যেমন—সব ধরনের পাখি ও অন্যান্য চতুষ্পদ জন্তু। সেগুলো আবার দুই প্রকার : প্রথমত, পাখি। পাখিকুলের মধ্যে যেসব পাখি থাবা ও নখরবিশিষ্ট হয় যেমন—চিল, শকুন, বাজ, ঈগল ইত্যাদি খাওয়া মাকরুহে তাহরিমি। এটিও নিষিদ্ধের অন্তর্ভুক্ত। আর যেগুলো নখরবিশিষ্ট নয়, অর্থাৎ যা শুধু ঠোঁটের সাহায্যে খাবার গ্রহণ করে, এগুলো খাওয়া হালাল। এর মধ্য থেকে ওই সব কাক, যা শুধু নাপাকি ভক্ষণ করে সেগুলোও মাকরুহ; কিন্তু যেসব কাক বেশির ভাগ শস্যদানা, পোকামাকড় খায় সেগুলো হালাল।

 

 

 

 

 

দ্বিতীয়ত, পশু। বিধানগত দিক দিয়ে পশু দুই প্রকার : হিংস্র পশু, যা থাবা মেরে আক্রমণ করে খায়। সেসব পশু খাওয়া হারাম। যেমন—বাঘ, সিংহ, শিয়াল, কুকুর, বিড়াল, বানর, হাতি ইত্যাদি।

 

 

 

 

 

দ্বিতীয় প্রকার হলো অহিংস্র পশু। অহিংস্র পশুর মধ্যে যেগুলোর সর্বাঙ্গ পাক, সেগুলো খাওয়া হালাল। যেমন—গৃহপালিত গরু, ছাগল, মহিষ, ভেড়া, উট, দুম্বা। অনুরূপ বন্য পশুর মধ্যে বন্য গরু, হরিণ, খরগোশ, বন্য গাধা। আর যেগুলোর সর্বাঙ্গ নাপাক, তা খাওয়া হারাম। যেমন—শূকর। কোরআনে কারিমে ইরশাদ হয়েছে, ‘তিনি তোমাদের ওপর হারাম করেছেন মৃত জন্তু, প্রবাহিত রক্ত, শূকরের গোশত।’ (সুরা বাকারা, আয়াত : ১৭৩)

 

 

 

 

 

আর গৃহপালিত গাধা ও সব ধরনের ঘোড়া খাওয়া মাকরুহ। এ ছাড়া হালাল প্রাণীর মধ্য থেকেও যেগুলো শুধু নাপাকি খেতে অভ্যস্ত, সেগুলো খাওয়াও মাকরুহ। (বাদায়েউস সানায়ে ৫/৩৫-৪১, আল মাওসুয়াতুল ফিকিহিয়্যাহ : ৫/১৩২-১৪৮)

এই পোস্টটি আমাদের সোশাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন