আজ ১লা শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৬ই জুলাই, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

গোলাপগঞ্জ উপজেলাকে ভিক্ষুক মুক্ত করতে ব্যতিক্রম উদ্যোগ

প্রথমবার্তা প্রতিবেদক, গোলাপগঞ্জ: গোলাপগঞ্জ উপজেলাকে ভিক্ষুকমুক্ত করতে সাবেক শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এমপির দিক-নির্দেশনায় একটি বাড়ি একটি খামার ব্যতিক্রম উদ্যোগ গ্রহন করেছে। টেকসই স্বনির্ভর হতে কর্মের চাহিদা অনুযায়ী বিশেষ একটি প্রকল্পের অর্থ দিয়ে প্রাথমিক অবস্থায় ৩ জন ভিক্ষুককে গরু,ছাগল ও সবজির বীজ ব্যবসায়ীক উপকরণ প্রদান করা হয়েছে। এই প্রকল্পের অধীনে পরবর্তীতে আজকের ৩ জনসহ মোট ৩০ জনকে ভিক্ষুককে সবজির বীজ,গরু,ছাগল,হাঁস,মুরগীসহ ব্যবসায়ীক উপকরণ প্রদান করা হবে।

আর কর্মের সুযোগ পেয়ে ভিক্ষাবৃত্তি ছেড়ে দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তারা। গোলাপগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মামুনুর রহমান মঙ্গঁলবার (৩০ জুন) দুপুরে প্রথম দিকে ৩ জন ভিক্ষুকের হাতে ব্যবসায়িক উপকরণগুলো তুলে দেন। এসময় একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের সমন্বয়কারী শাখা ব্যবস্থাপক পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক মো: সেলিম আহমদ উপস্থিত ছিলেন।

ভিক্ষুকরা জানান, আগে ভিক্ষা করে বহু কষ্টে দিনযাপন করেছি। এখন সরকার যে সহায়তা দিয়েছে তা থেকে আয় করে জীবন নির্বাহ করবো। আর কোনদিন কারো কাছে হাত পাতব না।

গোলাপগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মামুনুর রহমান জানান, গোলাপগঞ্জ উপজেলাকে ভিক্ষুক মুক্ত করতে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। চলতি অর্থবছরে স্থানীয় এমপির দিক-নির্দেশনায় অনুযায়ী ভিক্ষুকরা যে কর্ম করতে স্বাচ্ছন্দবোধ করে সে অনুযায়ী ৩০জন ভিক্ষুকের হাতে তুলে দেয়া হবে গরু, ছাগল, হাঁস, মুরগীসহ ব্যবসায়ীক উপকরণ।আজ একজন ভিক্ষুককে ২৩ হাজার টাকা মূল্যের একটি গরু ও আরও দুজনকে ১০হাজার টাকা মূল্যের দুটি ছাগল প্রদান করা হয়।

আর ভিক্ষুকরা যাতে সুষ্ঠভাবে ব্যবসা পরিচালনা করতে পারে এবং টেকসই উন্নয়ন হয় সে জন্য নিয়মিত তদারকি-বিনামূল্যে মুরগী-ছাগলের ওষুধ সরবরাহসহ পরামর্শের জন্য প্রাণীসম্পদ ও একটি বাড়ী একটি খামার অফিসের সাথে চুক্তিও করা হয়েছে। তাদের কোন সমস্যা হলে তাৎক্ষনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা যায়।

এই পোস্টটি আমাদের সোশাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন